অাত্মবিশ্বাস ও সাধনা

0
1912

অাত্মবিশ্বাস ও সাধনা

——————————– জগতে সব কিছুই পরিবর্তনশীল। অানন্দ-দুঃখ,হাসি-কান্না কোনকিছুই স্থায়ী নয়। অাপনার ব্যর্থতাও স্থায়ী নয়,কিন্তু সাফল্য স্থায়ী। অার এই সাফল্যের মূল চাবিকাঠি হলো সাধনা ও অাত্মবিশ্বাস। “অামি পারব”এই দৃঢ় বিশ্বাসই সকল সাফল্যের চাবিকাঠি।
confidence এর ছবির ফলাফল
এ ধারণা যে কতটা বাস্তবিক তা প্রমাণের জন্যে দু’একটি উদাহরণ দেই। হাজার বছর ধরে দৌড়বিদরা ৪ মিনিটে এক মাইল দৌড়ানোর প্রচেষ্টা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে এসেছে যে এটা অসম্ভব। বিশেষজ্ঞরা বলেন,মানুষের হাড়ের কাঠামো ও ফুসফুসের গঠন এ সাফল্যের অন্তরায়। দু’হাজার বছর এই ধারণা নিয়েই পার হয়ে গেল।
একদিন একজন ব্যক্তি প্রমাণ করে দিলেন যে বিশেষজ্ঞদের এ ধারণা ভুল। তারপর ঘটলো অারও অলৌকিক ঘটনা। রজার ব্যানিস্টার প্রথম ৪ মিনিটে এক মাইল দৌড়ের রেকর্ড স্থাপন করার ৬ সপ্তাহের মধ্যেই জন ল্যান্ডি ২ সেকেন্ডের ব্যবধানে নতুন রেকর্ড স্থাপন করেন। তারপর থেকে এ পর্যন্ত হাজারেরও বেশি দৌড়বিদ ৪ মিনিটের রেকর্ড ভঙ্গ করেন।যখন অসম্ভব মনে করা হত,তখন কেউই পারেনি। অথচ এটা করা সম্ভব বিশ্বাস করার পর রেকর্ড ভাঙার ধুম লেগে যায়। অামরা সবাই নিশ্চয়ই সার্কাস দেখেছি।
একটা দড়ির উপর দিয়ে কিভাবে অনায়াসে পার হয়ে যায় একটা মানুষ!এটা সাধনার বলেই সম্ভব।অার অামাদের যদি ঐভাবে একটা দড়ির উপর দিয়ে পার হতে বলে তখন কি হয়? দড়ির উপর এক পা এগিয়ে ডানে তাকাই ,অারেক পা এগিয়ে বামে তাকাই, অারেক পা এগুতে গিয়ে নিচে তাকাই। মনে মনে ভাবি ‘পরেই গেলাম রে!’ ব্যস,স্বরবর্ণের ২য় ধ্বনি উচ্চারিত হয়…অা-অা-অা-অা-অা। তারপর অার ভুল করেও ওদিকে তাকাই না। অাপনি বাঁচলে বাপের নাম। কিন্তু জীবনে কেউই সাধনা ছাড়া বড় হয়নি।
মার্কিন প্রতিপত্তিশালী এন্ড্রু কার্নেগীর কথা ধরুন। তিনি ছিলেন বস্তির ছেলে। তার বয়স যখন ১২ বছর তখন তার পোশাক এতই মলিন ও নোংরা ছিল যে দারোয়ান তাকে পাবলিক পার্কে প্রবেশ করতে দেয়নি।তখন তিনি প্রতিজ্ঞা করেছিলেন,”এই পার্কটা অামি কিনে ফেলবো।” ৩০ বছর পর নিরলস পরিশ্রম,সাধনা অার বিশ্বাসের বলেই তিনি সত্যিই ওই পার্কটি কিনে দেখিয়েছেন অার একটা নতুন সাইনবোর্ড লাগিয়েছিলেন,”অাজ থেকে এই পার্কে যেকোন সময়ে যেকোন মানুষ যেকোন পোশাকে প্রবেশ করতে পারবে।”
হেলেন কেলার বিশ্বাস করতেন যে তিনি কথা বলতে পারবেন।তার দৃষ্টি,শ্রবণ ও বাকশক্তি বিনষ্ট হয়েছিল।কিন্তু তার বিশ্বাস ও প্রচেষ্টা তাঁর বাকশক্তি পুনরুদ্ধার করে। কলেজ থেকে ডিগ্রি লাভ করেন।সফল বক্তা হিসেবে সারাবিশ্বে পদাচরণ করেছেন তিনি। প্রকৃতপক্ষে, সাফল্যের মূলরহস্য নিহিত থাকে মনের শক্তি সম্পর্কে সচেতনতা ও অবিচল বিশ্বাসের উপর।
………………
Jasmin Akter
Facebook Comments